বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৫২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দালাল-বেঈমানের জন্মদাতা কুখ্যাত ইব্রাহিমকে পাহাড়ি জনগণ কখনই ক্ষমা করবে না! টেকনাফে আদালতের আদেশ অমান্য করে জমি দখলের চেষ্টা খাগড়াছড়িতে অটোরিকশা চালকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার থানচি বাজার সড়কের বেহাল দশা, জনদুর্ভোগ চরমে ফিলিস্তিন সংকট:বেসামরিক নাগরিকদের গাজা ত্যাগের জন্য সময় নির্ধারণ করাই ইসরাইলের উদ্দেশ্য কুতুবদিয়ায় গলায় ফাঁস দিয়ে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা ইসরায়েল থেকে রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করলো তুরস্ক মাস্ক পরে অনুশীলনে বাংলাদেশ, দিল্লিতে ম্যাচ নিয়েও শঙ্কা গর্জনিয়ায় পানিতে ডুবে হেফজখানার ছাত্রের মৃত্যু পাকিস্তানের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের রানের পাহাড়

কাপ্তাইয়ে আগর বনায়নে ১৫ বছর মেয়াদ শেষ, হতাশায় চাষীরা

ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত: বুধবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৪৭ পঠিত

পরীক্ষকামূলক আগর উৎপাদন করে মান বুঝা যাবে। উৎপাদনে ভালো কিছু পেলে উভয়ের সফলতা আসবে। সিলেট বড়লেখা হতে আগর চাষ ও উৎপাদনে অভিজ্ঞ কিছু লোক কাপ্তাই আগর বাগান সরজমিনে পরিদর্শন করে এবং এর সফলতা ও বিভিন্ন বিষয়ে নিয়ে আলোচনা করেন।

রাঙ্গামাটি পার্বত্য চট্রগ্রাম দক্ষিণ বন বিভাগ ২০০৭-০৮সালে ১৫ বছরের জন্য কাপ্তাই একটি আগর চাষ প্রকল্প হাতে নেয় এবং বন বিভাগ ও স্থানীয় লোকদের সাথে প্রায় দেড়শ জন আগর চাষী অংশীদারভিত্তিতে স্টাম্পের মাধ্যমে চুক্তিবদ্ধ হন। ১৫ বছর প্রায় শেষ।পার্বত্যঞ্চলে এধরনের চাষ এটিই প্রথম বলে আগর চাষীরা মত প্রকাশ করে।

আগর চাষী জাহাঙ্গীর আলম, স্বপন বড়ুয়া,প্রদীপ দে নজরুল ইসলাম এরা জানান, আগর লাভের আশায় ১৫ বছর যাবত লাখ, লাখ টাকা ব্যয় করেছি। কিন্ত কখন এর সুফল পাব জানিনা। বন বিভাগের সাথে এ বিষয়ে একাধিক বার বৈঠকে বসার চেষ্টা করেও বর্থ হয়েছে। কেউ এ প্রকল্পের বিষয়ে আগর চাষীদের সুষ্ঠ সমাধান দেয়নি।

কাপ্তাই আগর চাষী সমিতির সভাপতি কাজী মাকসুদুর রহমান বাবুল জানান, লাভের আশায় বন বিভাগের সাথে অংশীদার ভিত্তিত্বে ১৫ বছরের জন্য চুক্তিবদ্ধ হই। কিন্ত বন বিভাগের এ বিষয়ে কোন পদক্ষেপ দেখা যায়নি। আগর ১৫ বছর পূর্ণহলে করণীয় কি? সে ব্যাপারেও কোন সুষ্ঠ সূরাহ দেয়নি বলে জানান।

চলতি সেপ্টেম্বর মাসে সিলেট হতে আগর চাষে অভিজ্ঞদের কাপ্তাই আগর বাগানে আনা হয়। পর্যবেক্ষক প্রফেসর আবদুল ছবুর জানান, আগে একটি বাগান পরীক্ষামূলক উৎপাদন করলে এর কতটুকু মান বা আগর আসছে কিনা তা বুঝা যাবে। তিনি বলেন, আগর চাষে লাখ টাকা আয় করা সম্ভব।

রাঙ্গামাটি দক্ষিণ বন বিভাগ কাপ্তাই রেঞ্জ কর্মকর্তা খন্দকর মাহামুদুল হক মুরাদ জানান, বিষটি আমার একার নয়। এ প্রকল্পের মেয়াদ শেষ বন বিভাগীয় কর্মকর্তাদের সাথে এ বিষয়ে আলোচনা বা বৈঠক বসলে সমাধান হবে এবং উভয় এর সুফল ভোগ করতে পারবে।

আগর সমিতির লোকজন জানান, চলতি সেপ্টেম্বর মাসের শেষ সপ্তাহে এ বিষয়ে রাঙ্গামাটি দক্ষিণ বন বিভাগীয় কর্মকর্তাদের নিয়ে কাপ্তাইয়ে একটি বৈঠক বসার কথা রয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Let's check your brain 18 − = 13

একই ধরনের আরও সংবাদ
© All rights reserved 2022 CHT 360 degree