বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ০৮:২৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দালাল-বেঈমানের জন্মদাতা কুখ্যাত ইব্রাহিমকে পাহাড়ি জনগণ কখনই ক্ষমা করবে না! টেকনাফে আদালতের আদেশ অমান্য করে জমি দখলের চেষ্টা খাগড়াছড়িতে অটোরিকশা চালকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার থানচি বাজার সড়কের বেহাল দশা, জনদুর্ভোগ চরমে ফিলিস্তিন সংকট:বেসামরিক নাগরিকদের গাজা ত্যাগের জন্য সময় নির্ধারণ করাই ইসরাইলের উদ্দেশ্য কুতুবদিয়ায় গলায় ফাঁস দিয়ে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা ইসরায়েল থেকে রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করলো তুরস্ক মাস্ক পরে অনুশীলনে বাংলাদেশ, দিল্লিতে ম্যাচ নিয়েও শঙ্কা গর্জনিয়ায় পানিতে ডুবে হেফজখানার ছাত্রের মৃত্যু পাকিস্তানের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের রানের পাহাড়

খাগড়াছড়িতে ছাদ ধসের হতাহতে উপার্জনক্ষম ছেলেকে হারিয়ে দিশেহারা মা-বাবা

ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২২
  • ৩১ পঠিত

পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম কলেজ পড়ুয়া ছেলে মো. সাজ্জাদ হোসেনকে হারিয়ে শোকে বিহবল বাবা মো. আমিনুল ইসলাম ওরফে আমিন মিস্ত্রী ও মা ছায়েরা খাতুন।কাউকে দেখলে জড়িয়ে ধরে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। কোনো সান্ত্বনাই কান্না থামাতে পারছে না তাদের।

মো. সাজ্জাদ হোসেন (১৮) খাগড়াছড়ি টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের এইচএসসি প্রথম বর্ষের ছাত্র ছিলেন। বাবা মো. আমিনুল ইসলাম ওরফে আমিন মিস্ত্রী ও মা ছায়েরা খাতুন দুই জনের বহুমুখী রোগে আক্রান্ত। ছোট মেয়ে প্রতিবন্ধী। তবে বিয়ে হয়ে গেছে। পড়া-লেখার পাশাপাশি সংসারের হাল ধরতে শ্রম দিতেন মো. সাজ্জাদ হোসেন । তার শ্রমের অর্থ দিয়ে চলতো মা ও বাবার ঔষধ, দুই মুঠো লবণ-ভাত ও ঘর ভাড়া।

কিন্তু ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস অসুস্থ মা ও বাবার চিকিৎসা ও সংসারের খরচ যোগাতে খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদের কেন্ডিলিবারের ছাদ ঢালাইয়ের শ্রম দিতে গিয়ে প্রাণ হারান কলেজ পড়ুয়া সাজ্জাদ হোসেন। সংসারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ছেলেকে হারিয়ে এখনো পরিবারের আহাজারি চলছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, খাগড়াছড়ি শহরের কলেজ গেইট এলাকায় নুর নাহারের বাসায় মাসিক তিন হাজার টাকায় ছেলে মো. সাজ্জাদ হোসেনকে নিয়ে ভাড়া থাকেন তার মা-বাবা। দুই জনেই ডায়াবেটিকসহ নানা রোগে আক্রান্ত। আমিনুল ইসলাম ওরফে আমিন মিস্ত্রী এক সময় বিভিন্ন ফার্নিচার দোকনে কাজ করলেও অসুস্থ্যতার কারণে আর সম্ভব হচ্ছে না। এ অবস্থায় পরিবারের হাল ধরেন কলেজ পড়ুয়া ছেলে সাজ্জাদ হোসেন। পড়া-লেখার পাশাপাশি শ্রম দিতেন। যা পায় তা দিয়ে মা ও বাবার জন্য ঔষধ কিনতেন ও বাকি অর্থ দিয়ে সংসার চলতো।

মো. আমিনুল ইসলাম ওরফে আমিন মিস্ত্রী জানান, ছেলে ছিল সংসারের উপার্জনক্ষম ব্যক্তি। তিন মাসের ঘর ভাড়া পড়ে গেছে। সামনের দিনগুলো কীভাবে পার করবো জানি না।

এদিকে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের কেন্ডিলিবারের ছাদ ধসে নিহত সাজ্জাদ হোসেনের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছেন খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি পরিবার। জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য ওয়াদুদ ভূঁইয়ার নেতৃত্বে জেলা বিএনপি’র নেতৃবৃন্দ নিহত সাজ্জাদ হোসেনের পরিবারের প্রতি সমবেদনা ও আর্থিক সহায়তা দিয়েছেন। ভবিষ্যতেও পাশে থাকার আশ্বাস দেন। এ সময় ওয়াদুদ ভূঁইয়া অভিযোগ করেন, দুর্নীতি ও অনিয়মের কারণে এ শ্রমিক হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। তিনি সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের বিচার দাবি করেন। এ সময় খাগড়াছড়ি জেলা
বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এম এন আবছারসহ জেলা বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

জানা যায়, নকশা ক্রটি ও নির্বাহী প্রকৌশলীর দায়িত্বে অবহেলার কারণে খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদের কেন্ডিলিবারের ছাদ ধসে দুই শ্রমিক নিহত ও ৫ শ্রমিক আহত হন। কলেজ পড়ুয়া ছাত্র সাজ্জাদ হোসেন নিহতদের মধ্যে একজন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Let's check your brain 23 − 17 =

একই ধরনের আরও সংবাদ
© All rights reserved 2022 CHT 360 degree