শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ১২:১২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দালাল-বেঈমানের জন্মদাতা কুখ্যাত ইব্রাহিমকে পাহাড়ি জনগণ কখনই ক্ষমা করবে না! টেকনাফে আদালতের আদেশ অমান্য করে জমি দখলের চেষ্টা খাগড়াছড়িতে অটোরিকশা চালকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার থানচি বাজার সড়কের বেহাল দশা, জনদুর্ভোগ চরমে ফিলিস্তিন সংকট:বেসামরিক নাগরিকদের গাজা ত্যাগের জন্য সময় নির্ধারণ করাই ইসরাইলের উদ্দেশ্য কুতুবদিয়ায় গলায় ফাঁস দিয়ে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা ইসরায়েল থেকে রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করলো তুরস্ক মাস্ক পরে অনুশীলনে বাংলাদেশ, দিল্লিতে ম্যাচ নিয়েও শঙ্কা গর্জনিয়ায় পানিতে ডুবে হেফজখানার ছাত্রের মৃত্যু পাকিস্তানের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের রানের পাহাড়

ডেটাবেজ সমৃদ্ধ ওয়েব পোর্টালসহ ট্যুরিস্ট পুলিশের ১০ পরিকল্পনা

ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৫৬ পঠিত

স্টেক হোল্ডারদের ডেটাবেজ সমৃদ্ধ ওয়েব পোর্টালসহ কক্সবাজার পর্যটন এলাকার শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তার স্বার্থে ১০টি পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে ট্যুরিস্ট পুলিশ।

সেগুলো হলো,
১. পর্যটন সম্পর্কিত সকল সেবা একই ওয়েব পোর্টালে প্রকাশ
২. অটো/সিএনজি চালকদের পর্যটকবান্ধব করতে আলাদা পোশাক, আইডি কার্ড ও ভাড়া নির্ধারণ
৩. হোটেল-মোটেল জোনে স্থানীয় কিশোরদের প্রবেশ সীমিতকরণ
৪. পর্যটন সম্পর্কিত সকল স্টেক হোল্ডারদের আইডি কার্ড ব্যবহার নিশ্চিত
৫. বাসসহ সকল পরিবহনে পর্যটক সচেতনতায় স্টিকার লাগানো
৬. সকল স্তরের স্টেক হোল্ডারদের ডেটাবেজের আওতায় আনয়ন
৭. আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় কিশোর গ্যাং ও ছিনতাই চক্রের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা
৮. বিচে হারানো ও দলছুট শিশু পরিচর্যা কেন্দ্র নির্মাণ
৯. ব্রেস্ট ফিডিং সেন্টার স্থাপন
১০. ফটোগ্রাফার/অটোচালক/কিটকট বয়দের নিয়মিত প্রশিক্ষণ প্রদান।

বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ‘সি সেইফ লাইফ গার্ড’ সদস্যদের ফোল্ডেবল স্ট্রেচার হস্তান্তর অনুষ্ঠানে পরিকল্পনাসমূহ তুলে ধরেন ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার রিজিয়নের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রেজাউল করিম।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পুলিশ সুপার মো. জিললুর রহমান। এতে কক্সবাজার প্রেসক্লাবের সভাপতি আবু তাহের চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মো. মুজিবুল ইসলাম, প্রথম আলোর কক্সবাজার অফিস প্রধান আবদুল কুদ্দুস রানা, সহকারী পুলিশ সুপার মো. মীজানুজ্জামান, ইন্সপেক্টর গাজি মিজানুর রহমান, চ্যানেল আই প্রতিনিধি সরওয়ার আজম মানিক, সি সেইফ লাইফ গার্ডের ফিল্ড টিম ম্যানেজার ইমতিয়াজ আহমেদ, কলাতলী-মেরিন ড্রাইভ সড়ক হোটেল রিসোর্ট মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মুকিম খানসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

সভাপতির সমাপনী বক্তব্যে পুলিশ সুপার মো. জিললুর রহমান বলেন, পর্যটনের উন্নয়নে সবার পজিটিভ মানসিকতা লালন করা উচিত। পর্যটনের ক্ষতি মানে সবার ক্ষতি। ট্যুরিস্ট পুলিশ ও ট্যুরিজম খাতে জড়িত সবার সাথে সমন্বয় রেখে আমরা কাজ করছি।

আইনগত কঠোরতার বিধি ও নিজেদের সক্ষমতার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ট্যুরিস্ট পুলিশ বাংলাদেশ পুলিশের একটি ইউনিট। ট্যুরিস্ট পুলিশের সকল সদস্য বাংলাদেশ পুলিশ কর্তৃক নিয়োগকৃত। বাংলাদেশ পুলিশ যে সকল কাজ করে, ট্যুরিস্ট পুলিশ সদস্যরাও সেসকল কাজ করতে পারবে। কেউ অপরাধ করে পার পাবে না।

পর্যটন এলাকায় নিয়মিত তৎপরতার পাশাপাশি অবাধে গরু বিচরণের বিরুদ্ধে অভিযান চলবে বলে ইঙ্গিত দেন পুলিশ সুপার মো. জিললুর রহমান।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Let's check your brain + 48 = 52

একই ধরনের আরও সংবাদ
© All rights reserved 2022 CHT 360 degree