মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ০৩:৪৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দালাল-বেঈমানের জন্মদাতা কুখ্যাত ইব্রাহিমকে পাহাড়ি জনগণ কখনই ক্ষমা করবে না! টেকনাফে আদালতের আদেশ অমান্য করে জমি দখলের চেষ্টা খাগড়াছড়িতে অটোরিকশা চালকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার থানচি বাজার সড়কের বেহাল দশা, জনদুর্ভোগ চরমে ফিলিস্তিন সংকট:বেসামরিক নাগরিকদের গাজা ত্যাগের জন্য সময় নির্ধারণ করাই ইসরাইলের উদ্দেশ্য কুতুবদিয়ায় গলায় ফাঁস দিয়ে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা ইসরায়েল থেকে রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করলো তুরস্ক মাস্ক পরে অনুশীলনে বাংলাদেশ, দিল্লিতে ম্যাচ নিয়েও শঙ্কা গর্জনিয়ায় পানিতে ডুবে হেফজখানার ছাত্রের মৃত্যু পাকিস্তানের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের রানের পাহাড়

থানচিতে গৃহহীন মুক্ত উপজেলা গড়তে ক্লান্তিহীন কাজ করছে প্রশাসন

ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত: সোমবার, ২০ মার্চ, ২০২৩
  • ২৫ পঠিত

বান্দরবানের থানচি উপজেলা ভূমিহীন-গৃহহীন মুক্ত উপজেলা পরিণত করার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনায় উপজেলা প্রশাসন ক্লান্তিহীণ কাজ করে যাচ্ছি। অচিরে বাস্তবায়ন করার তাগিদ রয়েছে। জনপ্রতিনিধি, স্থানীয় সুশিল সমাজ ও সাংবাদিকসহ সকল স্তরে মানুষের সহযোগিতা পেলে সে লক্ষ্যে পৌছতে পারবো।

আগামি বুধবার (২২ মার্চ) সকাল ১০ টা থানচি উপজেলা ভূমিহীন- গৃহহীন ৫২ পরিবারকে নির্মিত মাচাং ঘরসহ ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হবে।

সোমবার (২০ মার্চ) সকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মুহা: আবুল মনসুর স্থানীয় সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

“ আশ্রয়নের অধিকার শেখ হাসিনার উপহার ” এ শ্লোগানে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ন -২ প্রকল্পের আওতায় বান্দরবানে থানচি উপজেলা ভূমিহীন ও গৃহহীন ৩৩৯টি পরিবারকে পুনর্বাসনের উদ্যোগ নিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।

ইতোমধ্যেই ১ম পর্যায়ে ৩৪ টি, ২য় পর্যায়ে ২৫০টি, তৃতীয় পর্যায়ে ১০টি, এছাড়াও থানচি থানা পুলিশের ব্যবস্থাপনায ২ টি গৃহহীন পরিবারকে ২ (দুই) শতাংশ জমিসহ পাকা ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে। ততৃতীয় পর্যায়ের অসমাপ্ত পাকাঘর ৭ টিসহ বর্তমান ৪র্থ পর্যায়ের ৪৫ টি পাহাড়ে ক্ষুদ্র- নৃগৌষ্ঠিদের বসবাসকৃত মাচাংঘর সহ মোট ৫২ টি মাচাংঘরের ভূমি দলিলসহ ঘরের চাবি হস্তান্ত অনুষ্ঠান একযোগে আগামী ২২ মার্চ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও ভার্চুয়াল সংযোগের মাধ্যমে উদ্বোধন করবেন।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা( পিআইও) সূজন মিঞা জানান, দেশের একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না। প্রধানমন্ত্রীর এই ঘোষণা বাস্তবায়নে উপজেলায় ২(দুই) শতাংশ করে খাস জমি বন্দোবস্ত প্রদানপূর্বক গৃহহীন-ভূমিহীন পরিবারকে একক গৃহ নির্মাণের মাধ্যমে বরাদ্দ প্রদান করা হচ্ছে। প্রতিটি আশ্রয়ণ প্রকল্পে সমবায়ভিত্তিক কার্যক্রম পরিচালনার লক্ষ্যে চলছে রেজিস্ট্রেশনের কাজ।

আশ্রয়ণের বাসিন্দাদের সুপেয় খাবার পানি ও নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ/ বিদ্যুৎবিহীনদের সোলার সিষ্টেম সরবরাহের ব্যবস্থা করা পরিকল্পনা রয়েছে। জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা ও মুজিববর্ষ উপলক্ষে একক গৃহ নির্মাণ ও পরিকল্পনা সংক্রান্ত প্রকল্পের নিয়ম নিতি অনুসারে প্রকল্পের কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মু.আবুল মনসুর সোমবার দুপুরে ইউএনও কার্যালয়ের সংবাদ সম্মেলন করেন, সংবাদ সম্মেলনে আরও বলেন, জাতির পিতা স্বপ্ন দেখতেন সোনার বাংলার প্রতিটি মানুষ খুঁজে পাবে নিরাপদ আশ্রয়। আশ্রয়ণ প্রকল্প যেন সেই নিরাপদ আশ্রয়ের চুড়ান্ত রূপ। সারা দেশের মতো অত্র উপজেলা ৩৩৯ পরিবার পাহাড়ি ডিজাইনের মাচাংঘরসহ হস্তান্তর করা হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Let's check your brain 9 + 1 =

একই ধরনের আরও সংবাদ
© All rights reserved 2022 CHT 360 degree