বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ০৮:৪৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দালাল-বেঈমানের জন্মদাতা কুখ্যাত ইব্রাহিমকে পাহাড়ি জনগণ কখনই ক্ষমা করবে না! টেকনাফে আদালতের আদেশ অমান্য করে জমি দখলের চেষ্টা খাগড়াছড়িতে অটোরিকশা চালকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার থানচি বাজার সড়কের বেহাল দশা, জনদুর্ভোগ চরমে ফিলিস্তিন সংকট:বেসামরিক নাগরিকদের গাজা ত্যাগের জন্য সময় নির্ধারণ করাই ইসরাইলের উদ্দেশ্য কুতুবদিয়ায় গলায় ফাঁস দিয়ে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা ইসরায়েল থেকে রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করলো তুরস্ক মাস্ক পরে অনুশীলনে বাংলাদেশ, দিল্লিতে ম্যাচ নিয়েও শঙ্কা গর্জনিয়ায় পানিতে ডুবে হেফজখানার ছাত্রের মৃত্যু পাকিস্তানের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের রানের পাহাড়

ম্রো-ত্রিপুরার ৩৯ পরিবারের জমির দখল মুক্তি ও মামলা প্রত্যাহারের দাবি

ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত: সোমবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৬৮ পঠিত

বান্দরবানের লামা উপজেলার সরই ইউনিয়নে ম্রো ও ত্রিপুরা জনগোষ্ঠীর ৩৯ পরিবারের জমির মালিকানা ও মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে লামা সরই ভূমি রক্ষা সংগ্রাম কমিটি।

সোমবার (৫ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টায় রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এসময় ভূমি দখলমুক্ত করা ও গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারেরও দাবি জানান তারা।

লামা সরই ভূমি রক্ষা সংগ্রাম কমিটির আহ্বায়ক রংধজন ত্রিপুরা বলেন, ‘সরই ইউনিয়নের লাংকম পাড়া, জয়চন্দ্র পাড়া, রেংইয়েন পাড়ার ৩৯টি পরিবার অনেক বছর ধরে কৃষিকাজ করে আসছিল। কিন্তু জেলা প্রশাসন আমাদের সঙ্গে আলোচনা ছাড়াই লামা রাবার ইন্ডাস্ট্রিজকে সে জমি লিজ দিয়েছে। তারা আমাদের জমি পুড়িয়ে দিয়েছে। এতে আমাদের খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে।’

‘এ ছাড়া, তারা আমাদের সংগঠনের ১১ জনের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে। আমাদের ভূমি বুঝিয়ে দেওয়াসহ এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে’, বলেন তিনি।

সংগঠনের সদস্য সচিব লাংকম ম্রো বলেন, ‘১৯৮৮-১৯৯৪ সাল পর্যন্ত রাবার ইন্ডাস্ট্রিজ সরই ইউনিয়নে ১ হাজার ৬০০ একর জমি লিজ নিয়েছে। কিন্তু বাস্তবে তারা ৩ হাজার থেকে সাড়ে ৩ হাজার একর জমি দখল করেছে। ইজারা চুক্তি অনুযায়ী ১০ বছরের মধ্যে রাবার বাগান সৃজন করতে হবে ও অন্য কোনো প্রতিষ্ঠানের কাছে হস্তান্তর করা যাবে না। কিন্তু এ ইজারা চুক্তি তারা ভঙ্গ করেছে।’

সংগঠনের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ৯ এপ্রিল রাবার কোম্পানি ফলজ গাছপালা কেটে ফেলে ও আগুনে পুড়িয়ে দেয়। জেলা পরিষদের উদ্যোগে গঠিত তদন্ত কমিটি এ ঘটনায় কোম্পানির ইজারা বাতিলের সুপারিশ করে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে পাঠায়। এরপর জেলা প্রশাসনসহ তাদের সঙ্গে সমঝোতা মিটিং হলে ৪০০ একর জমির মধ্যে ১৯৫ একর জমি দিতে চায়। কিন্তু গ্রামবাসী পুরো জমির মালিকানা চান।

এজন্য সরকারের কাছে ৫টি দাবি জানিয়েছে লামা সরই ভূমি রক্ষা সংগ্রাম কমিটি। সেগুলো হলো- কোম্পানির দখলকৃত জমি দখলমুক্ত করতে হবে। ম্রো ও ত্রিপুরা সম্প্রদায়কে পর্যাপ্ত ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। জমিতে গাছপালা কাটা ও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় জড়িতদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে। ১১ জনের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। রাবার কোম্পানিসহ বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের জমির লিজ বাতিল করতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন লামা সরই ভূমি রক্ষা সংগ্রাম কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক রেংয়েন ম্রো, যুগ্ম আহবায়ক ফদরাম ত্রিপুরা, সংলে ম্রো, সদস্য মথি ত্রিপুরা, রিংরং ম্রো এবং রুইপাও ম্রো।

তবে এ বিষয়ে লামা রাবার ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের প্রকল্প পরিচালক কামাল উদ্দিন বলেন, ‘সংবাদ সম্মেলন করে আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য ছড়ানো হচ্ছে। ৪০০ একর জমি আমাদের লিজের আওতাধীন।’

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Let's check your brain − 4 = 4

একই ধরনের আরও সংবাদ
© All rights reserved 2022 CHT 360 degree