বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৭:৫০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
দালাল-বেঈমানের জন্মদাতা কুখ্যাত ইব্রাহিমকে পাহাড়ি জনগণ কখনই ক্ষমা করবে না! টেকনাফে আদালতের আদেশ অমান্য করে জমি দখলের চেষ্টা খাগড়াছড়িতে অটোরিকশা চালকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার থানচি বাজার সড়কের বেহাল দশা, জনদুর্ভোগ চরমে ফিলিস্তিন সংকট:বেসামরিক নাগরিকদের গাজা ত্যাগের জন্য সময় নির্ধারণ করাই ইসরাইলের উদ্দেশ্য কুতুবদিয়ায় গলায় ফাঁস দিয়ে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা ইসরায়েল থেকে রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করলো তুরস্ক মাস্ক পরে অনুশীলনে বাংলাদেশ, দিল্লিতে ম্যাচ নিয়েও শঙ্কা গর্জনিয়ায় পানিতে ডুবে হেফজখানার ছাত্রের মৃত্যু পাকিস্তানের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের রানের পাহাড়

শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে বান্দরবান সেনা রিজিয়নের আর্থিক সহায়তা প্রদান

ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত: শনিবার, ১ অক্টোবর, ২০২২
  • ৯২ পঠিত

“ধর্ম যার যার, উৎসব সবার” সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এই মূলমন্ত্রে উজ্জীবিত হয়ে ২৪ পদাতিক ডিভিশন, চট্টগ্রামের অধীন বান্দরবান রিজিয়ন শান্তি, সম্প্রীতি ও উন্নয়নের ধারা বজায় রাখার জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। বান্দরবান জেলায় বাঙালি-পাহাড়ি মুসলমান ছাড়াও সনাতন ধর্মী হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ও ক্ষুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠী তথা মুরং, ত্রিপুরা, চাকমা, মার্মা, বম, তঞ্চঙ্গ্যারা বসবাস করে। তারই ধারাবাহিকায় বান্দরবানের সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানসমূহের পূজা উদযাপন কমিটির আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বান্দরবান সেনা রিজিয়ন তথা বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর পক্ষ হতে ১৭টি মন্দির ও ০৭টি পূজা মন্ডণ্ডপে সর্বমোট ২ লাখ ৩৮ হাজার টাকা নগদ আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।

শনিবার (১ অক্টোবর) সকালে বিভিন্ন মণ্ডপের পূজা উদযাপন কমিটির হাতে এই নগদ টাকা তুলে দেয়া হয়।

আসন্ন শারদীয় দুর্গোৎসব সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব।বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও পাহাড়ি জনপদে শান্তি, শৃঙ্খলা ও সম্প্রীতির বন্ধনে নিরলসভাবে গত পাঁচ দশকের বেশি সময় ধরে কাজ করে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় বান্দরবান রিজিয়ন কর্তৃক শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে বিভিন্ন মন্দির ও পূজা মণ্ডপে আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়ে থাকে।

এছাড়া নির্বিঘ্নে ধর্মীয় মহোৎসব পালনের স্বার্থে এবং সুষ্ঠুভাবে পূজা অর্চনা পরিচালনার লক্ষ্যে অন্যান্য সকল নিরাপত্তা বাহিনীর সমন্বয়ে সামগ্রিকভাবে নিরাপত্তা প্রদান করা হবে।বাংলাদেশ সেনাবাহিনী পার্বত্য এলাকার ক্ষুদ্র-নৃ জনগোষ্ঠীসহ সকল জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে মানুষের জীবনমান উন্নয়ন এবং যে কোন প্রয়োজনে সর্বদা নিরলসভাবে কাজ করে যাবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Let's check your brain + 13 = 18

একই ধরনের আরও সংবাদ
© All rights reserved 2022 CHT 360 degree